করোনার টিকা তৈরিতে প্রাণ যাবে ৫ লাখ হাঙরের

0
519

করোনার কার্যকর ভ্যাকসিন বা টিকা উদ্ভাবনে গবেষণা চলছে বিভিন্ন দেশে। একে বলা হচ্ছে, ‘ফাস্ট-ট্র্যাক’ গবেষণা। এই টিকার জন্য হয়তো মরতে হবে পাঁচ লাখ হাঙরকে! বিষয়টি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে সামুদ্রিক প্রাণী রক্ষাকারী সংগঠন ‘শার্ক অ্যালাইস’।

তাদের বক্তব্য, মানুষের প্রাণ বাঁচাতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যেভাবে হুড়োহুড়ি করে পরীক্ষা চলছে; তাতে হয়তো পাঁচ লাখ হাঙরকে মৃত্যুদণ্ড পেতে হবে। কিন্তু টিকা তৈরিতে হাঙরকে কেন মরতে হবে? এর উত্তর হলো- বেশির ভাগ ভ্যাকসিন বা টিকায় ‘অ্যাজুভ্যান্ট’ লাগে। এটি একটি ফার্মাকোলজিক্যাল এজেন্ট, যা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে ভ্যাকসিনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এ উপাদানটি মেলে হাঙরের লিভারে। ভ্যাকসিনের দ্রুত ও কার্যকরী প্রভাব পেতে উপাদানটি জরুরি। অতএব ব্যাপক গবেষণা এবং টিকা তৈরির জন্য হাঙর নিধন জরুরি হয়ে পড়েছে।
সব ভ্যাকসিনেই বিভিন্ন অ্যাজুভ্যান্ট ব্যবহার করা হয়। ইনফ্লুয়েঞ্জার ভ্যাকসিন তৈরিতে লাগে ‘স্কুইলিন অয়েল’। কভিড-১৯-এর প্রতিষেধক তৈরিতেও এটি ব্যবহার করা হচ্ছে। হাঙর ছাড়াও আরও বেশ কিছু প্রাণীর লিভারে থাকে এই তেল। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রে হাঙরের লিভার অয়েলই নেওয়া হয়।
ওই সামুদ্রিক প্রাণী রক্ষাকারী সংগঠনটি দাবি করেছে, শুধু যুক্তরাষ্ট্রের জন্য প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন তৈরি করতেই অন্তত ২১ হাজার হাঙরকে মারতে হবে। গাছ থেকেও ‘স্কুইলিন অয়েল’ পাওয়া যায়। সংস্থাটির দাবি, হাঙর না মেরে যেন গাছ থেকে পাওয়া স্কুইলিন অয়েল ব্যবহার করা হয়। এতে পরিবেশ ও সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি হবে না।

সূত্র :আনন্দবাজার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে