গরম না কি ঠান্ডা? শীতকালে কোন পানিতে শ্যাম্পু করা চুলের জন্য ভালো

0
195

শীতকালে অনেকেই গরম পানি দিয়ে গোসল করেন। শ্যাম্পু করার সময়েও এই গরম পানি ব্যবহার করেন। কিন্তু গরম পানিতে গোসল করার অভ্যাসে চুলে নানা সমস্যা দেখা দেয়। খুশকি, মাথার ত্বকে চুলকানির মতো কয়েকটি সমস্যা বেড়ে যায়। গরম পানি মাথার ত্বকে হাইড্রোজেনের পরিমাণ অনেক কমিয়ে দেয়। ফলে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে পড়ে। চুল পড়তে থাকে, চুলের আগা ফেটে যায়। ত্বকের মতো চুলও নিজস্ব সৌন্দর্য হারাতে থাকে। গরম পানির প্রভাবে মাথার ত্বক অত্যধিক শুষ্ক হয়ে যায়। ফলে র‌্যাশ, ফুসকুড়ি জন্ম নিতে থাকে।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চুল ভাল রাখতে ঠান্ডা পানিতে গোসল করা ভাল। এতে ত্বক এবং চুল দুই-ই ভাল থাকবে। মাথার ত্বকে থাকা পুষ্টি বজায় রাখে ঠান্ডা পানি। সেই সঙ্গে মানসিক চাপ কমাতেও ঠান্ডা পানি দারুণ উপকারী। এত উপকার থাকা সত্ত্বেও ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করারও কিছু সমস্যা রয়েছে। শীতে ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করলে চুল নিজস্ব আর্দ্রতা হারায়। চুলে থাকা কিউটিকলগুলি নষ্ট হয়ে যায়। ফলে চুল ঝরতে থাকে। তখন প্রশ্ন উঠতে পারে,গরম পানি এবং ঠান্ডা পানি— দু’টিতেই যদি সমস্যা হয়, তা হলে কি গোটা শীতকালে শ্যাম্পু না করাই ভালো?

এর একটি উপায় রয়েছে। সবচেয়ে ভাল হয় যদি গরম এবং ঠান্ডা পানি একসঙ্গে মিশিয়ে নেওয়া যায়। গরম পানিতে ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়ামের মতো খনিজ উপাদান থাকে, যা মাথার ত্বক এবং চুলে জমাট বেঁধে থেকে ক্ষতি করে। আবার ঠান্ডা পানিতে গোসল করলেও মাথার ত্বকের ছিদ্রমুখগুলি বন্ধ হয়ে যায়। ফলে নোংরা জমে নানা রকম ব্যাক্টেরিয়ার জন্ম দেয়। তা থেকে র‌্যাশ হয়। তাই শীতকালে শুধু গরম বা ঠান্ডা পানিতে নয়, বরং দু’টি মিশিয়ে গোসল করুন। এতে চুলে পিএইচের মাত্রা কিছুটা হলেও ঠিক থাকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে