বোঝা যাচ্ছে না করোনার গতি

0
661

রংপুরে এক দিনে শনাক্ত তিন, পরদিনই ৩০

রংপুরে করোনার মতিগতি বোঝা যাচ্ছে না। এক দিনে শনাক্ত তিনজন, আবার পরদিন ৩০ জনের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত। শীতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়বে এমন শঙ্কা সব মহলে। তবে বাজার, পথঘাটে দেদার স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন হচ্ছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রমেক) সূত্রে জানা গেছে, পয়লা নভেম্বর ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়। ৩১ অক্টোবর ৫০ জনের নমুনা পরীক্ষায় দুজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। ২৯ অক্টোবর ১৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। ২৮ অক্টোবর ১১৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ২০ জনের দেহে। রমেকে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের পর এ পর্যন্ত ৩৩ হাজার ৯৮০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ হয়েছে ৫ হাজার ৬৭৭ জনের। পরিসংখ্যানে উঠে এসেছে, আগস্ট-সেপ্টেম্বরে করোনা পরীক্ষা ও শনাক্তের হার বেশি ছিল। তবে অক্টোবরে উভয়ই কমেছে। অক্টোবরের কোনো দিন ২ থেকে ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আবার কোনো কোনো দিন ৩০ জনের বেশি মানুষের দেহে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে। শনাক্তের হার অস্বাভাবিক ওঠানামা করায় রংপুরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা করোনার মতিগতি বুঝতে পারছেন না।

কারণ শনাক্তের ধারাবাহিকতায় কোনো দিন একেবারে কম। আবার কোনো দিন ১৫ থেকে ২০ গুণ বেশি।

এদিকে রংপুর জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫২ জনের। অন্যান্য জেলার তুলনায় মৃত্যুর হার কম। এটাকে অনেকে ভালো লক্ষণ মনে করলে আসন্ন শীত নিয়ে শঙ্কিত সবাই।

এদিকে সরকারি প্রচার-প্রচারণা থাকা সত্ত্বেও হাট-বাজার, রাস্তাঘাটে স্বাস্থ্যবিধি ৯০ শতাংশ মানুষই মানছে না। মাস্ক ছাড়া দেদার ঘুরে বেড়াচ্ছে মানুষ। হাবভাব দেখে মনে হয়, দেশে করোনা বলে কোনো কিছু নেই। এ অবস্থা চলতে থাকলে যে কোনো সময় করোনায় আক্রান্তের হার বাড়বে এমনটাই মনে করছেন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরন্ব কুমার রায় জানান, রংপুরে করোনা শনাক্তের হার কমেছে। তবে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি না হলে শীতে করোনায় আক্রান্তের হার বাড়তে পারে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে