ভারতে টিকা দেওয়া শুরু

0
665

ভারতজুড়ে গতকাল থেকে শুরু হয়েছে করোনার টিকাকরণ কর্মসূচি। সকাল সাড়ে ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ টিকাকরণের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপরই গোটা দেশে শুরু হয় টিকাকরণ। প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল মিলিয়ে তিন হাজার ছয়টি কেন্দ্রে এ টিকা দেওয়া হচ্ছে। প্রায় তিন লাখের বেশি মানুষ প্রথম দিন টিকা নিয়েছেন।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী  বলেন, ‘খুব ভালোভাবে পরীক্ষা করে তবেই দুটি টিকাকে বিজ্ঞানীরা ছাড়পত্র দিয়েছেন। এ দুটি হলো সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড ও ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন। তাই চিন্তা করার কিছু নেই।’ কোনো প্রকার গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানান মোদি। কেন্দ্রের নির্দেশ অনুসারে প্রথম দফায় করোনা যোদ্ধা অর্থাৎ স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, সেনাবাহিনীর সদস্যসহ অন্য ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের টিকা দেওয়া হয়। সব নিয়ম মেনেই তাদের নাম আগে থেকেই কো-উইন অ্যাপে নথিভুক্ত করে টিকা দেওয়া হয়। টিকা গ্রহণের পর কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষণে রাখা হয় টিকা গ্রহীতাদের। এরপর বাড়ি যাওয়ার অনুমতি মেলে। টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার ২৮ দিনের মাথায় দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে। দুটি ডোজ সম্পন্ন হওয়ার ১৪ দিন পর রক্তরসে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়া শুরু হবে।

এদিকে গোটা ভারতের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গেও গতকাল নির্বিঘ্নে করোনার টিকাকরণ পর্ব শেষ হয়েছে। রাজ্যটির সব জেলায় ও কলকাতায় ২১২টি কেন্দ্রে একসঙ্গে চলে এ টিকাকরণ। কলকাতায় ১৯টি সরকারি ও বেসরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে টিকাকরণ পর্ব চলে। এদিন কলকাতা মেডিকেল কলেজে কভিড টিকা নেন পশ্চিমবঙ্গের শ্রম প্রতিমন্ত্রী ডা. নির্মল মাঝি। কেন্দ্রের ঘোষণা অনুসারে সপ্তাহে চার দিন চলবে এ টিকাকরণ কর্মসূচি। প্রতিদিন ১০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। এদিন রাজ্য সরকারের সচিবালয় নবান্ন থেকে ভার্চুয়ালিভাবে গোটা কর্মসূচির ওপর নজরদারি চালান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যনার্জি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে