মুখে দুর্গন্ধ হলে কী করবেন?

0
39
tooth

মুখে দুর্গন্ধ, অস্বাস্থ্যকর নিশ্বাস যেমন লজ্জায় ফেলে দেয়; তেমনই ক্ষতি করে স্বাস্থ্যেরও। মুখে দুর্গন্ধ থাকলে কারো কাছাকাছি যাওয়ার আগে হীনমন্যতায় ভুগতে পারেন অনেকেই। কাজেই চলুন আজ জানা যাক, মুখে দুর্গন্ধ কেন হয় এবং এর থেকে পরিত্রাণের উপায়।

মূলত, কিছু বদঅভ্যাস বা শারীরিক কিছু গোলমালের জন্য মুখে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে। কী কী কারণে মুখে গন্ধ হতে পারে?

  • দাঁতে ক্যাভিটি বা ক্যারিজ
  • দাঁতের ফাঁকে খাবার আটকে থাকা
  • অপরিষ্কার দাঁত ও অপরিষ্কার জিহ্বা
  • আঁকাবাঁকা দাঁতের গঠন
  • ক্যালকুলাস বা পাথর জমে থাকা
  • দাঁতের গোড়া বা মাড়ি থেকে রক্ত পড়া

এ ছাড়া অনেকক্ষণ খালি পেটে থাকা, খাবার ঠিকভাবে না চিবানো, ডিহাইড্রেশন, ভিটামিনের অভাব, ডায়াবেটিস ও লিভারের সমস্যা ইত্যাদি কারণে হতে পারে।

পরিত্রাণ কীভাবে মিলবে?

নিয়মিত দাঁত ব্রাশের সময় দাঁতের সঙ্গে জিহ্বাও ভালোকরে পরিষ্কার করে নিতে হবে। মুখে দুর্গন্ধ এড়াতে অনেক রকমের কৌশল আছে। তবে সবচেয়ে কার্যকরী ও গুরুত্বপূর্ণ হলো স্কেলিং করা। এতে মুখ ও মাড়ির গোড়া থেকে সব ধরনের ময়লা, ক্যালকুলাস, রক্ত পড়া বন্ধ করে। এজন্য একজন ডেন্টিস্টের কাছে যেতে হবে। তাই মুখে দুর্গন্ধ থাকলে কারো কাছে যাওয়ার আগে একজন ডেন্টিস্টের কাছে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ। মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ৪ ঘরোয়া উপায়

  • লেবু বা আদা চা
  • লেবু দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর করুন
  • লবঙ্গ দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর
  • দারুচিনি দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

হাতে যদি সময় না থাকে, সে ক্ষেত্রে রইলো কিছু ঘরোয়া টোটকা—

লেবু বা আদা চা

খুব ভালো অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের কাজ করে চা। তাই দুধ ছাড়া লেবু বা আদা দিয়ে রং চা পান করতে পারেন।

লেবু দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর করুন

এক কাপ পানিতে এক টেবিল চামচ লেবুর রস, অল্প পরিমাণ লবণ মিশিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। মুখের দুর্গন্ধ দূর হবে।

লবঙ্গ দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর

মুখের মধ্যে কয়েকটি লবঙ্গ দিয়ে রাখুন। চিবোতে থাকলে লবঙ্গের রস মুখের দুর্গন্ধ দূর করবে। এছাড়া এক কাপ পানিতে এক চা চামচ লবঙ্গ দিয়ে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট ফুটিয়ে দিনে দুবার লবঙ্গ চা খান। এতেও মুখের দুর্গন্ধ দূর হবে।

দারুচিনি দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর করার উপায় 

অল্প পরিমাণে দারুচিনি নিয়ে চিবালেও মুখ থেকে দুর্গন্ধ দূর হবে।

যাদের শারীরিক গোলমালের জন্য মুখে দুর্গন্ধ হয়, তাদের ক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা নিতে হবে। কেননা প্রিয়জনের নিশ্বাস হোক দুর্গন্ধমুক্ত।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে