মোবাইল ফোনের কারণে হতে পারে ক্যান্সার!

0
159
cancer

মোবাইল এমনই একটি জিনিস যার মাধ্যমে মুহূর্তে আপনি জানতে পারেন গুরুত্বপূর্ণ অনেক খবর। মোবাইল ফোনের যেমন উপকারিতা রয়েছে, তেমনি এর অপকারিতাও রয়েছে। অনেকেই ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন (Mobile Phone) বন্ধ করেন না। অ্যালার্ম দিয়ে ফোনকে বালিশের নিচে বা পাশে রাখার অভ্যাস রয়েছে অনেকের। অনেকেই আবার ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোনটি সঙ্গী করে ঘুমান।

গবেষণায় দেখা গেছে, মোবাইল ফোনের শরীর থেকে উৎপন্ন রেডিয়েশনের কারণে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটছে। ফলে দিনের পর দিন ঘুমের কোটা পূর্ণ না হওয়ার কারণে হার্ট অ্যাটাক, নানাবিধ হার্টের রোগ, হাই ব্লাড প্রেসার, স্ট্রোক এবং ডায়াবেটিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়ছে। এখানেই ভাববেন না শেষ, আরও নানাভাবে মোবাইল ফোন আমাদের শেষ করে দিচ্ছে।

যেমন-
১. ক্যান্সার রোগের প্রকোপ বাড়ছে
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রকাশিত রিপোর্টে স্পষ্ট বলা হয়েছে, মাথার কাছে ফোন রেখে শুলে শরীরে রেডিয়েশনের প্রভাবে প্রাণকোষদের বিকাশে বাঁধার সৃষ্টি হয়। ফলে নানাবিধ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা মারাত্মক বৃদ্ধি পায়।

২. মস্তিষ্কে বিরূপ প্রভাব
রাতে মোবাইলে গান শুনতে শুনতে ঘুমিয়ে পড়েন অনেকেই, যা মস্তিষ্কের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর। অনেকে আবার হেডফোন কানে দিয়েও ঘুমান, এটি আরও ক্ষতিকর। অত্যাধিক ফোন ব্যবহারের ফলে মস্তিষ্কে প্রভাব পড়ে।

৩. ব্রেন টিউমারের সম্ভাবনা বাড়ায়
মোবাইল চার্জে বসিয়ে কথা বলা একেবারেই ঠিক নয়, কারণ সেই সময়ে চারপাশে একটা ইলেকট্রো-ম্যাগনেটিক ফিল্ড তৈরি হয়। চিকিৎসকদের মতে, এর ফলে ব্রেন টিউমার পর্যন্ত হতে পারে। তাই খুব দরকার পড়লে চার্জ অফ করে কথা বলুন।

৪. রেটিনার ক্ষতি
অন্ধকারে ফোনের আলো আমাদের চোখের রেটিনার ক্ষতি করে। আর এই আলো ঘুমের জন্য প্রয়োজনীয় হরমোন নিঃসরণ-এ বাধা দেয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে