শীতে সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ করতে হবে

0
683
mushtuq hosain

ডা. মুশতাক হোসেন

রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা ও জনস্বাস্থ্যবিদ ডা. মুশতাক হোসেন বলেছেন, যতদিন আক্রান্ত ব্যক্তি থাকবে ততদিন করোনা সংক্রমণ থাকবে। তাপমাত্রার সঙ্গে করোনার সম্পর্ক নেই কিন্তু আমাদের কর্মকান্ডের সঙ্গে আছে।

জনসমাগম হলে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে। তাই এবার শীতে কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না। গতকাল তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, গ্রীষ্মের তাপে যদি করোনার জীবাণু ক্ষতিগ্রস্তই হতো, তাহলে ইকুয়েডর, সৌদিআরব, যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনায় করোনায় লাশের স্তূপ জমত না।

শীতপ্রধান দেশে ঠান্ডা থেকে বাঁচতে দরজা-জানালা লাগিয়ে মানুষ গাদাগাদি করে থাকে। এ জন্য সংক্রমণ বাড়ে। আকাশপথে যোগাযোগ বাড়ায় রোগী এক দেশ থেকে অন্য দেশে ছড়িয়ে পড়বে। আমাদের দেশে শীতে সামাজিক অনুষ্ঠান বেড়ে যাওয়ায় সংক্রমণ বাড়তে পারে। সামাজিক মেলামেশা না কমলে ঋতু নয়, হুট করেই যে কোনো সময় সংক্রমণ বাড়তে পারে।

গণপরিবহনের দরজা-জানালা বন্ধ থাকায় মুখ না ঢেকে হাঁচি দিলে জীবাণু ছড়িয়ে পড়বে স্বল্প পরিসরে। হঠাৎ করে কোথাও সংক্রমণের বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। এটা তরঙ্গ মেনে আসবে না। টেস্ট বাড়িয়ে রোগী শনাক্ত করতে হবে। আক্রান্ত রোগীদের আইসোলেশনে না রাখলে হঠাৎ করে বিভিন্ন জায়গায় অনেক করোনা রোগী দেখা যাবে। একজন থেকে ছড়িয়ে পড়তে সময় লাগবে না। তাই অবেহলা নয়, সতর্ক থাকতে হবে, স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে