সবাইকে মাস্ক পরতে অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

0
738

করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্ত হতে অন্য সব কিছুর সঙ্গে মাস্ক পরতে হবে। যত বেশি মাস্ক পরা হবে তত দ্রুতই এই দুর্যোগ থেকে মুক্ত হবে দেশের মানুষ। মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাস্ক পরার ওপর এমন গুরুত্ব দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। গতকাল সোমবার মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদসচিব। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পুরো ক্যাবিনেট দেশবাসীর কাছে এই অনুরোধ জানিয়েছে।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে করা ব্রিফিংয়ে খন্দকার আনোয়ার বলেন, প্রধানমন্ত্রী এবং পুরো ক্যাবিনেট এটা বারবার রিকোয়েস্ট করেছে। এ বিষয়ে গণমাধ্যমের মাধ্যমে সচেতনতার বিষয়টিতেও গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, ‘সাংবাদিকরাও আপনাদের জায়গা থেকে প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে মাস্ক পরার বিষয়ে বলছেন; কিন্তু তার পরও দেখা যায় অনেক লোক মাস্ক পরে না। এই বিষয়ে আমাদের সবার সহযোগিতা দরকার। এটা আমাদের জাতীয় দুর্যোগ, এই দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে আমাদের সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে। আমরা বারবার বলছি, এটা কমিউনিটি ডিজিজ। আমাদের সবাইকে যার যার জায়গা থেকে আরো সতর্ক হওয়ার সুযোগ আছে। আমরা যদি সবাই মাস্ক ব্যবহার করি, অবশ্যই এটা কমে যাবে। গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ, আপনারা সবাইকে আরো বেশি করে বলুন। যে যেখানে আছেন মাস্কটা যেন ব্যবহার করেন, স্যানিটাইজার যেন ব্যবহার করেন।

প্রসঙ্গ লকডাউন : জেলা বা কোনো নির্দিষ্ট এলাকায় কঠোর বিধি-নিষেধ বা লকডাউন কার্যকরের জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে বলা আছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে লকডাউনসংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা স্থানীয় প্রশাসনকে দিয়ে রাখা হয়েছে। করোনাভাইরাসের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর বিষয়ে করা প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদসচিব। তিনি বলেন, লকডাউনের বিষয়ে মেয়র ও স্থানীয় এমপি সাহেবরা, জেলা প্রশাসন, সিভিল সার্জন যাঁরা আছেন তাঁরা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে