হাইপারগ্লাইসেমিয়া (ডায়াবেটিস) কথন!

0
843

ডায়াবেটিস খুবই পরিচিত অসুখ। এখন প্রায় প্রতি ঘরে ঘরে ডায়াবেটিসের রোগী । ডায়াবেটিস হলে রক্তে গ্লকোজের পরিমাণ বেড়ে যায় । ডায়াবেটিস হলে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। সারা শরীরেই সমস্যা হতে পারে ডায়াবেটিসে। যদি কোনো ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের গ্লকোজ অনেক বেশি থাকে তাহলে তাকে হাইপারগ্লাইসেমিয়া বলা হয়ে থাকে। ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের গ্লকোজ বিভিন্ন কারণে কমেও যেতে পারে। এই অবস্থাকে হাইপারগ্লাইসেমিয়া বলে। হাইপারগ্লাইসেমিয়া বেশি বিপদজনক।

হাইপারগ্লাইসেমিয়া এর বিভিন্ন লক্ষণ দেখা যায় । তবে সবার আবার একই রকম লক্ষণ থাকেনা। তবে যেসব লক্ষণ সাধারণত দেখা যায় তার মধ্যে আছেঃ
১। ঘন ঘন মূত্রত্যাগ। রোগী বারবার প্রস্রাব করতে থাকে
২। বমিভাব, বমি
৩। পানির তৃষ্ণা বৃদ্ধি পায়
৪। ঝাপসা দৃষ্টি
৫। মাথাঘোরা
৬। মাথাব্যথা
৭। অবসাদ
৮। অস্বস্তি ইত্যাদি।

হঠাৎ হাইপারগ্লাইসেমিয়া হলে দ্রুত চিকিৎসা করতে হবে। নাহলে জীবন নাশের সম্ভাবনা থাকে। আবার দীর্ঘদিন যদি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকে তবে নানারকম শারীরিক জটিলতা দেখা দিতে পারে। চিকিৎসা না করলে হাইপারগ্লাইসেমিয়া রোগ থেকে যেসব সমস্যা দেখা দিতে পারে তার মধ্যে আছে:

১। হৃদরোগের সমস্যা
২।নার্ভের বিভিন্ন জটিলতা
৩। কিডনি বিকল
৪। রেটিনার সমস্যা
৫। চোখের ছানি
৬। দাঁতের সমস্যা
৭। মাড়ির সমস্যা
৮। বিভিন্ন চর্মরোগ
৯। যৌন সমস্যা ইত্যাদি ।
ডায়াবেটিসের চিকিৎসা প্রতিদিন করতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ কোনভাবেই বাদ দেয়া যাবেনা। অনেক সময় রোগী নিজে নিজে ওষুধ সমন্বয় করেন। এই কাজ করা কখনই ঠিক নয়। আবার অনেকে নিয়মিত চিকিৎসকের কাছে যান না। এর ফলে এই ধরণের সমস্যা বেশি হয়। ডায়াবেটিসের ওষুধ (খাবার ওষুধ বা ইনসুলিন) গ্রহণ হঠাৎ বন্ধ করে দেয়া কখনই ঠিক নয়। শর্করা জাতীয় খাবার গ্রহণে ডায়াবেটিস রোগীদের সতর্ক হওয়া উচিত। কিছু কিছু ওষুধ যেমন- স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ খেলে ডায়াবেটিস বেড়ে যায় । চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া তাই এসব ওষুধ খাওয়া যাবেনা ।

ডাঃ মোঃ ফজলুল কবির পাভেল

সূত্রঃ ইনকিলাব

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে